আবরার হত্যামামলায় সাক্ষ্য দিলেন তদন্ত কর্মকর্তা

আবরার ফাহাদ
বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার মামলায় সর্বশেষ সাক্ষী তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামানের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

তিনি রোববার ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে জবানবন্দি দেন।

সাড়ে তিন ঘণ্টার জবানবন্দিতে তিনি বেশ কয়েকজন সাক্ষীর ১৬১ ধারার জবানবন্দি, আলামতের জব্দ তালিকা, আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেওয়া, ১৬৪ ধারার তাদের জবানবন্দির বিষয়বস্তু তুলে ধরেন।

২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর ঘটনার পর ১৪ অক্টোবর অবধি তদন্তে তিনি কী কী করেছেন তার বর্ণনা তদন্ত দেওয়ার পর শুনানি মুলতবি হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা সোমবার ১৫ অক্টোবর থেকে তদন্তে কী কী করেছেন, তার বর্ণনা দেবেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন ট্রাইবুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবু আবদুল্লাহ ভূঞা।

আলোচিত এই মামলায় ৬০ জন সাক্ষীর মধ্যে ৪৫ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হল বলে এই আইনজীবী জানান।

আবরার হত্যা মামলায় মোট আসামি ২৫ জন। তারাও সবাই বুয়েটের বিভিন্ন বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী। আসামিদের মধ্যে ২২ জন কারাগারে। রোববার তাদের আদালতে হাজির করা হয়। তিনজন আসামি পলাতক রয়েছেন।

বুয়েটের শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র ও তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরারকে গত ৬ অক্টোবর রাতে ছাত্রলীগের এক নেতার কক্ষে নিয়ে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়।

পরদিন ৭ অক্টোবর তার বাবা ১৯ শিক্ষার্থীকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন। পাঁচ সপ্তাহ তদন্ত করে তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান গত ১৩ নভেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে যে অভিযোগপত্র জমা দেন, সেখানে আসামি করা হয় মোট ২৫ জনকে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর ২৫ আসামির সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর নির্দেশ দেন। এরপর ৫ অক্টোবর সাক্ষ্যগ্রহণ ‍শুরু হয়।