ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা: ২ কিশোরের বিরুদ্ধেও অভিযোগ গঠন

ঢাকার বাড্ডায় ছেলেধরা সন্দেহে তাসলিমা বেগম রেনুকে পিটিয়ে হত্যার মামলায় দুই কিশোর আসামির বিরুদ্ধেও অভিযোগ গঠন হয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে আলোচিত এই মামলার বিচার দুই বছর পর আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হল।

বুধবার ঢাকার ৭ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোছা. কামরুন্নাহার দুই কিশোর আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

তিনি সাক্ষ্য গ্রহণ শুরুর জন্য আগামী ৮ নভেম্বর দিন ঠিক করে দেন বলেও জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেন্জ।

এর আগে এই মামলায় গত ১ এপ্রিল প্রাপ্ত বয়স্ক ১৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন হয়েছিল ঢাকার ষষ্ঠ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ ফাতেমা ইমরুজ কনিকার আদালতে।

দুই কিশোরকে নিয়ে মোট ১৫ আসামির বিচার হবে এখন। কিশোর দুজনের বিচার চলবে শিশু আদালতে।

তাসলিমা বেগম রেনু

২০১৯ সালের ২০ জুলাই রাজধানীর বাড্ডার একটি স্কুলে সন্তানদের ভর্তির বিষয়ে খোঁজ নিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়ে মারা যান রেনু।

এ ঘটনায় অজ্ঞাত ৫০০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন রেনুর ভাগ্নে সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু।

২০২০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আব্দুল হক। আসামি সবাইকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

দুই কিশোর বাদে আসামিরা হলেন- মো. শাহীন (৩১), বাচ্চু মিয়া (২৮),  মো. বাপ্পি (২১), ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় মোল্লা (২০), মুরাদ মিয়া (২২), সোহেল রানা (৩০), বিল্লাল (২৮), আসাদুল ইসলাম (২২), মো. রাজু (২৩), আবুল কালাম আজাদ (৫০), কামাল হোসেন (৪০), রিয়া বেগম ময়না (২৭) ও মহিউদ্দিন।

আসামিদের মধ্যে রিয়াসহ তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।