জাবি ছাত্রীদের নিয়ে ‘কুরুচিপূর্ণ’ বক্তব্য, শাবি ভিসিকে আইনি নোটিশ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ছাত্রীদের নিয়ে ‘কুরুচিপূর্ণ’ বক্তব্য প্রত্যাহার চেয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

নোটিশ পাওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে শাবি উপাচার্যকে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা চাইতে বলা হয়। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও ঢাকা জজ কোর্টের আইনজীবী খাদেমুল ইসলাম ডাকযোগে এই নোটিশ পাঠান।

নোটিশে বলা হয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মেয়েদের হল সারারাত খোলা রাখার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সম্পূর্ণ অপ্রাসঙ্গিকভাবে দেশের অপর একটি স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ, অশালীন ও অবমাননাকর মন্তব্য করেন শাবি উপাচার্য।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বক্তব্যের একটি অডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়ে। বিভিন্ন গণমাধ্যমেও এ বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

নোটিশে বলা হয়, “শাবি ভিসির এই বক্তব্য অশালীন, অবমাননাকর, কুরুচিপূর্ণ, সংবিধানবিরোধী এবং নারী শিক্ষার প্রতি চরম অন্তরায় স্বরূপ।

“জাবির ছাত্রীরা লেখাপড়া শেষে রাষ্ট্রের বিভিন্ন পর্যায়ে সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। তারা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এমনকি শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়েও অনেকে সুনামের সঙ্গে শিক্ষকতা করছেন।”

আইনি নোটিশে বলা হয়,নিজের বক্তব্যের মাধ্যমে শাবি ভিসি জাবি ছাত্রীদেরই শুধু নয়, পুরো বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারকে চরমভাবে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন কর্মসূচির মধ্যে তিনি এই নোটিশ পেলেন।

এর আগে গত সোমবার উপাচার্যকে অপসারণ করে ক্যাম্পাসে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে উদ্দেশ্য করে খোলা চিঠি দিয়েছেন শাবির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

গত ১৩ আগস্ট থেকে বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রভোস্ট কমিটির পদত্যাগের দাবিতে শুরু করা আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা পরবর্তীতে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি যুক্ত করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই হলের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রাধ্যক্ষ জাফরিন আহমেদ লিজার বিরুদ্ধে ‘অসদাচরণের’ অভিযোগে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করেন।

আরও পড়ুন

শাবিতে অনশনের দ্বিতীয় দিনে অসুস্থ ৩ শিক্ষার্থী  

উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আমরণ অনশনে শাবি শিক্ষার্থীরা  

শাবি উপাচার্যের অপসারণে খোলা চিঠি রাষ্ট্রপতিকে  

শাবি উপাচার্যের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে অনড় শিক্ষার্থীরা