মাঘের শীতে কাবু বিস্তীর্ণ জনপদ

মাঘের মাঝ সময়ে এসে ‘বাঘ কাঁপানো’ শীত নেমেছে দেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। দেশের আটটি জেলায় বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ।

শুক্রবার কুড়িগ্রামের রাজারহাটে থার্মোমিটারের পারদ নেমেছে ৬ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, যা এ মৌসুমের সর্বম্নি তাপমাত্রা। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও দুয়েক দিন এ শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে বলে আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ জানান, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগসহ টাঙ্গাইল, গোপালগঞ্জ, ময়মনসিংহ, মৌলভীবাজার, যশোর এবং কুষ্টিয়া জেলায় মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্য প্রবাহ বয়ে চলেছে।

টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা, শ্রীমঙ্গল, রাজশাহী, ঈশ্বরদী, বদলগাছী, তাড়াশ, সৈয়দপুর, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, বরিশালসহ অনেক এলাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রয়েছে ৭ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে।

মাইজদীকোর্ট, কুমিল্লা, সিলেট, বরিশাল ও ভোলায় সামান্য বৃষ্টিও হয়েছে।

একপশলা বৃষ্টির পর মৃদু শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস

শীতে বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষ  

বজলুর রশিদ জানান, মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে এবং এর বর্ধিতাংশ উত্তর পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। লঘুচাপের প্রভাবে গত কয়েক দিন বৃষ্টি হলেও আগামী কয়েকদিনে আর তেমন সম্ভাবনা নেই।

“বৃষ্টির প্রভাব কেটে যাওয়ায় এখন জেঁকে বসেছে শীত। এমন থাকবে কয়েক দিন। আগামী ২৪ ঘণ্টায় রাতের তাপমাত্রা কোথাও কোথাও ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রাও সামান্য কমবে। তিন-চার দিন পরে তাপমাত্রা ফের বাড়তে থাকবে।”

শনিবারের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দেশের অনেক এলাকায় আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত কুয়াশার দাপট থাকবে।

তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার কম থাকলে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে বলে ধরা হয়। ৮ থেকে ১০ ডিগ্রির মধ্যে হলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলে। ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামলে বলা হয় তীব্র শৈত্যপ্রবাহ।

গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে মৌসুমের প্রথম দফা শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। এখন চলছে চলতি মৌসুমের চতুর্থ শৈত্যপ্রবাহ।