কিশোরী ও নারীদের ক্ষমতায়ন উদযাপনে ‘ওয়াও ভার্চুয়াল বাংলাদেশ’

‘দুর্জয় প্রাণের আনন্দে’ প্রতিপাদ্যে কিশোরী ও নারীদের ক্ষমতায়ন উদযাপনে ‘ওয়াও ভার্চুয়াল বাংলাদেশ ২০২২’ উৎসবের আয়োজন করা হবে।

দ্য ব্রিটিশ কাউন্সিল, সিসিডি বাংলাদেশ ও মঙ্গলদীপ ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার প্রতিদিন রাত ৮টায় ভার্চুয়ালি এ উৎসব চলবে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এতে বলা হয়, “প্রতিদিন অজস্র বাধা-বিপত্তি আর চ্যালেঞ্জের মোকাবেলা করে অদম্য সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছেন আধুনিক সময়ের নারী ও কিশোরীরা। তাদের আত্মশক্তিকে স্বীকৃতি দিতে এবং এ নিয়ে আলাপ-আলোচনার ক্ষেত্র তৈরি করার লক্ষ্য নিয়ে এ উৎসব আয়োজন করা হচ্ছে।”

এই আয়োজনের প্রথম দিনে থাকছে ব্রিটিশ কাউন্সিলের হেড অফ আর্টস নাহিন ইদ্রিসের শুভেচ্ছা বক্তব্য, কনটেম্পোরারি ও ভরতনাট্যম শিল্পী উম্মে হাবিবার নাচ এবং একুশে পদকজয়ী লোকসঙ্গীত শিল্পী সুষমা দাসের গান।

সেই সাথে দেশের সাবেক দ্রুততম নারী শিরিন আক্তার ও বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরষ্কার বিজয়ী আলপনা রানী মিস্ত্রি তাদের সাফল্যের গল্প বলবেন। একান্ত আলোচনায় নিজেদের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরবেন গ্রেয়ই, ইউকে’র আর্টিস্ট ডিরেক্টর জেনি সীলি ও চলচ্চিত্র প্রযোজক এশা ইউসূফ।

দ্বিতীয় দিনের শুরুতে থাকছে ‘হোয়াট ইট মিনস টু বি এন অ্যালাই’ শীর্ষক একটি প্যানেল আলোচনা; যাতে মডারেটর হিসেবে অংশ নেবেন সামাজিক মাধ্যমের ইনফ্লুয়ান্সার সাকিব বিন রশীদ ও বক্তা হিসেবে অংশ নেবেন গ্রামীণফোনের হেড অব কর্পোরেট ব্র্যান্ডিং অ্যান্ড এনগেজমেন্টস শারমিন রহমান, জনপ্রিয় স্ট্যান্ড-আপ কমেডিয়ান নাভিদ মাহবুব, প্যালিয়েটিভ কেয়ার এবং সাপোর্টিভ কেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ডা. রুমানা দৌলা এবং ওয়াও ফাউন্ডেশন, ইউকে’র রাইটার ও সিনিয়র প্রোগ্রামার সাবিনা আখতার।

এর পরই থাকছে মঙ্গলদীপ ফাউন্ডেশনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর শ্রিয়া সর্বজয়ার বক্তব্য এবং ত্রপা মজুমদার ও পান্থ শাহরিয়ারের পরিবেশনায় ‘ধলেশ্বরী অপেরা’ নাটক থেকে দুটি দৃশ্য।

অনাকাঙ্ক্ষিত স্পর্শের ওপর সিসিমপুরের একটি ভিডিও দিয়ে আরম্ভ হবে তৃতীয় দিনের আয়োজন। এর পর থাকছে সিসিডি বাংলাদেশের জয়েন্ট ডিরেক্টর শাহানা পারভিনের বক্তব্য এবং আদিবাসী নৃত্য দল ‘কালারস অফ হিল’এর পরিবেশনায় একটি নাচ।

সেই সাথে, ব্র্যাক ব্যাংকে কর্মরত রূপান্তরকামী নারী (ট্র্যান্সওম্যান) সঞ্জীবনী এবং এশিয়ার সেরা ১০০ বিজ্ঞানীর মধ্যে অবস্থানকারী ড. সালমা সুলতানা তাদের কথা তুলে ধরবেন।

এদিন আরো থাকছে মঙ্গলদীপ ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন সারা যাকের এবং এসবিকে টেক ভেঞ্চার ও এসবিকে ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সোনিয়া বশির কবিরের অংশগ্রহণে সাক্ষাৎকার ও আলোচনা।

২০১০ সালে ওয়াও ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও জুড কেলি সিবিই’র হাত ধরে ওয়াও’এর যাত্রা আরম্ভ হয়, যখন তিনি লন্ডনের সাউথব্যাংক সেন্টারের আর্টিস্ট ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন।

বর্তমানে ওয়াও লিঙ্গসমতা সংক্রান্ত ভ্রান্ত ধারণাগুলোকে প্রশ্নবিদ্ধ করার এবং এ প্রসঙ্গে আরও বেশি মানুষ এবং মানুষের প্রতিক্রিয়া ও ধারণাকে এক বিন্দুতে মিলিত করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে চলেছে।