চট্টগ্রামে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধির কোনো বালাই নেই

বন্দর নগরীতে অভিযান চালিয়ে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি না মানার প্রমাণ পেয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুক্রবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক এ অভিযান পরিচালনা করেন।

এসময় নগরীর জিইসি মোড় ও ওয়াসা মোড়ে বাস, সিএনজি ও ব্যক্তিগত গাড়িতে স্বাস্থ্যবিধি না মানার প্রমাণ পায় আদালত।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক বলেন, “কয়েকটি বাসে দেখা যায় সুরক্ষাসামগ্রী হ্যান্ড স্যানিটাইজার নেই, চালক-সহকারী এমনকি যাত্রীদেরও মাস্ক নেই। কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় দুই সিটে একজন বসার কথা থাকলেও দুইজন করে বসে। বাসে হ্যান্ড স্যানিটাইজার যেগুলো আছে জীবাণুনাশক না।

“কয়েকটি বাসে শুধু পানি দিয়ে স্যানিটাইজড করছে, যা যাত্রীদের সাথে প্রতারণার শামিল। যাত্রীদের জিজ্ঞেস করলে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি পালনের কথা বললে অনেক ক্ষেত্রে ড্রাইভার ও হেল্পাররা তাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন।”

স্বাস্থ্যবিধি না মানা, স্যানিটাইজার না থাকা, নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখা, পানি দিয়ে স্যানিটাইজ করা ও অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করায় ১০ জন চালককে মোট তিন হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পাশাপাশি ব্যক্তিগত মাইক্রোবাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশায় অতিরিক্ত যাত্রী থাকায় ১০ জন চালক ও যাত্রীকে মোট এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক বলেন, পরে জিইসি মোড়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশার ১০ জন চালককে একত্রিত করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পরামর্শ দিই।