দ. আফ্রিকা-নেদারল্যান্ডস ওয়ানডে সিরিজ স্থগিত

শঙ্কাটাই শেষ পর্যন্ত সত্যি হলো। দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের প্রাদুর্ভাবে স্থগিত হয়ে গেল নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তাদের ওয়ানডে সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ।

ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা শনিবার এক বিবৃতিতে জানায়, দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের পারস্পরিক সমঝোতায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ সুপার লিগের সিরিজটির প্রথম ম্যাচ শুক্রবার বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। দুই দলই পায় ৫ পয়েন্ট করে। ২০২৩ সালে সুপার লিগের এই চক্র শেষ হওয়ার আগে বাকি দুই ম্যাচ আয়োজনের ব্যাপারে আশাবাদী ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা।

দেশে ফেরার ফ্লাইট না থাকায় আপাতত দক্ষিণ আফ্রিকাতেই থাকতে হবে ডাচদের। দক্ষিণ আফ্রিকান অঞ্চলে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার পর তাদের খেলোয়াড়রা সেখানে মানসিকভাবে খেলার অবস্থায় নেই বলে ধারণা করা হচ্ছে। শুক্রবার দলটির কোচ ও সাবেক অস্ট্রেলিয়ান কিপার-ব্যাটসম্যান রায়ান ক্যাম্পবেল যেমন টুইট করেন, ‘মাথার ওপর অবিশ্বাস্য চাপ’ নিয়ে খেলেছেন তারা।

দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোতে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপের বেশিরভাগ অংশ, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড। এই অঞ্চল থেকে ফিরে আসা তাদের নিজেদের নাগরিকদের ওপর আরোপ করা হয়েছে কোয়ারেন্টিন।

বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে আছে ভারত ‘এ’ দল। তিনটি করে টেস্ট ও ওয়ানডে এবং চারটি টি-টোয়েন্টি খেলতে আগামী ৮ ডিসেম্বর দেশটিতে যাওয়ার কথা ভারতের সিনিয়র দলের। ভারত অবশ্য এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্রমণকারীদের ওপর কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করেনি। তবে এই অঞ্চল থেকে আসা লোকদের জন্য কড়া পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার গত গ্রীষ্মের মৌসুমে করোনাভাইরাস ব্যাপক প্রভাব ফেলেছিল। ইংল্যান্ড তাদের সীমিত ওভারের সফরে ওয়ানডে না খেলেই দেশে ফিরে আসে। চার টেস্টের সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া। শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান অবশ্য কড়া জৈব-সুরক্ষা বলয়ে কোনো ঝামেলা ছাড়াই সফর শেষ করেছিল।