চট্টগ্রাম পাসপোর্ট অফিসে রোহিঙ্গা তরুণী ধরা

অসত্য তথ্যে পাসপোর্ট করতে এসে চট্টগ্রাম পাসপোর্ট কার্যালয়েই ধরা পড়েছে এক রোহিঙ্গা তরুণী।

সোমবার চট্টগ্রামের বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা কার্যালয়ে আবেদনের তথ্য যাচাইয়ের সময় জোবাইদা খানম নামে ওই তরুণীকে আটক করে পুলিশে দেওয়া হয়।

বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয়ের পরিচালক মো. আবু সাইদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, জোবাইদা নামের এক তরুণী সীতাকুণ্ডের সলিমপুর ইউনিয়নের ঠিকানা ব্যবহার করে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন।

এতে তিনি বাবার নাম সৈয়দ নূর, মায়ের নাম সলেমা বেগম উল্লেখ করে জন্মসনদ এবং তার মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্র ও নাগরিকত্ব সনদ দাখিল করেন।

পরিচালক বলেন, “আবেদনকারী তরুণীর কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তার আঙ্গুলের ছাপ যাচাই করে দেখা যায় তিনি জুরাইয়া বিবি নামে ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিবন্ধন করেছিল। তখন তার বয়স ছিল ১৫ বছর।”

অথচ ওই তরুণীর আবেদনের সঙ্গে জমা দেওয়া জন্মসনদ অনুযায়ী, তার জন্মস্থান চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায় দেখানো হয়েছে। সার্ভারে জন্মসনদটির তথ্য সঠিক আছে। কিন্তু তার মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্রের নামের সঙ্গে এনআইডি সার্ভারের তথ্যের নামের মিল নেই বলে জানান আবু সাঈদ।

আটক তরুণীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে তাকে ডবলমুরিং থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের হাতে পাসপোর্ট: জালিয়াতির শুরু জন্ম নিবন্ধন সনদে  

যেভাবে পাসপোর্ট করাতে যাচ্ছেন রোহিঙ্গারা