১৪৫ গানের স্বত্ব বেচে দিলেন শাকিরা

এই মুহূর্তে যদি ‘হিপস ডোন্ট লাই’ অথবা ‘হোয়েনেভার, হোয়েনেভার’ গানটি শুনে তালে তালে নেচে উঠে থাকেন, তবে এর সঙ্গে এও জেনে নিন, শাকিরার এই গানগুলো এখন আর শাকিবার নেই।

কলম্বিয়ার এই পপতারকার ১৪৫টি গানের স্বত্ব সম্প্রতি কিনে নিয়েছে যুক্তরাজ্যের লন্ডনভিত্তিক সংগীত ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান হিপনোসিস।

গান বিক্রি করে শাকিরার পকেটে কত এসেছে তা এখনও খোলাসা না হলেও, শাকিরা ভক্তদের ধারণা দিতে বিবিসি বলছে, হিপনোসিস সাধারণত ১৫ বছরের রয়্যালটির মূল্য দিয়ে থাকে।

শাকিরার এসব গানের মালিকানা হাতে নিয়ে সিনেমা ও টেলিভিশন, ব্যবসা, কভার সংস্করণ এবং পারফরম্যান্স দিয়ে লাভের মুখ দেখার আশায় রযেছে হিপনোসিস।

পিকে-শাকিরার ঘরে নতুন অতিথি  

নকলবাজ শাকিরা

আবারও মা হচ্ছেন শাকিরা

পিকে-শাকিরার ঘরে নতুন অতিথি

১৯৯১ সালে যখন শাকিরার প্রথম অ্যালবাম বাজারে আসে তখন তার বয়স মোটে ১৩ বছর। প্রায় তিন দশকে বিক্রি হয়েছে তার গানের ৮ কোটি রেকর্ড।

৪৩ বছর বয়সী এই গায়িকা ও গীতিকারের ঝুলিতে রয়েছে তিনটি গ্রামি অ্যাওয়ার্ড এবং ১২টি ল্যাটিন গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড।

২০০১ সালে শাকিরার প্রথম ইংরেজি গানের অ্যালবাম ‘লন্ড্রি সার্ভিস’ কিনেছিল ১৩ কোটি ভক্ত।

২০১০ সালের ফিফা বিশ্বকাপের জন্য গাওয়া ওয়াকা ওয়াকা– দিস টাইম ফর আফ্রিকা এবং আরো অনেক জনপ্রিয় গান ১৫ দেশের মিউজিক টপ চার্টে চূড়ার জায়গাটি দখল করে রেখেছিল।  

ফেইকবুকের গোড়ার ১০ বছরের ইতিহাসে শাকিরাই প্রথম তারকা যিনি ২০১৪ সালে ১০ কোটি ফলোয়ার অর্জন করেন।

এই তারকার হালের অ্যালবাম ‘এল ডোরাডো’ যুক্তরাষ্ট্রে ডায়মন্ড সনদ পায়। ইউটিউবে তার দুটো ভিডিও ছাড়িয়েছে ২০০ কোটি ভিউ। শাকিরার নতুন গান ‘গার্ল লাইক মি’র তালে টিকটকে ভাইরাল হচ্ছে নাচ।

শাকিরার সঙ্গে শেলটন  

ফেইসবুক-জনপ্রিয়তায় শীর্ষে শাকিরা  

শাকিরার বিশ্বকাপ  

শিশুদের জন্য শাকিরার ওয়ার্ল্ড বেবি শাওয়ার  

এরপরেও গান বিক্রি করলেন কেন শাকিরা?

বিবিসি বলছে, আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা অবশ্যই বড় একটি কারণ এখানে।

সম্প্রতি এই তারকার নামে ১ কোটি ৩০ লাখ পাউন্ডের ট্যাক্স বিল পাঠিয়েছে স্পেন সরকার।

এক বিবৃতিতে শাকিরা বলেন, তার গানের জন্য হিপনোসিস ‘দারুণ এক ঘর’ হয়ে উঠবে এখন।

“আট বছর বয়সে, গান গাওয়ারও অনেক আগে আমি পৃথিবীর বোধের লিখতে শুরু করেছিলাম। প্রতিটি গানই ছিল আমার ওই সময়ের প্রতিবিম্ব।

“কিন্তু যখন আমি বিশ্বের সামনে দাঁড়িয়ে গান গাই, তখন এর কোনোটাই আমার একার থাকে না; বরং যারা এগুলোর প্রশংসা করেন, এসব তাদেরও হয়ে ওঠে। আমি কৃতজ্ঞ যে গান লিখে আমি অপরের সাথে যোগাযোগ গড়ে তুলতে পেরেছি; এসব আমার নিজের চেয়েও বিরাট কিছু ছিল।”

রয়টার্স লিখেছে, মহামারীর কারণে বিভিন্ন কনসার্ট ও খোলা মঞ্চের অনুষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর স্বত্ব বিক্রির একটি ধারা শুরু হয় গত বছর থেকে।

মার্কিন গীতিকবি-শিল্পী বব ডিলান ডিসেম্বরে তার গানের স্বত্ব বিক্রি করে দিয়েছিলেন ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের কাছে। সেই পথ ধরে গানের স্বত্ব বিক্রি করে দেন মার্কিন-কানাডিয়ান সংগীত শিল্পী নিয়ল ইয়ং।

হঠাৎ করেই যেন পুরানো গান শোনার এক জোয়ার এসেছে অনলাইন মাধ্যমে। বিগত কয়েক মাসে পুরান আমলের বহু গান তালিকার শীর্ষে অবস্থান নিয়েছে। যে কারণে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোও এখন ‘ক্লাসিক’ গানগুলো কেনার আগ্রহ দেখাচ্ছে।

সম্প্রতি হিপনোসিস নিয়ল ইয়ং-সহ ফ্লিটউড ম্যাক গিটারিস্ট লিন্ডসে বাকিংহাম এবং রেকর্ড প্রযোজক জিমি লভিং’য়ের সংগীত স্বত্বও কিনে নয়।

হিপনোসিস প্রতিষ্ঠাতা মার্ক মার্কুরিয়াডিস প্রশংসার জয়ধ্বনি তুলে শাকিরাকে, ‘লাতিন সংগীতের রানি’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।