রিয়াজের সঙ্গে কথার লড়াই নিয়ে মিশা বলছেন, ‘এটাই তো মজা’

শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ ও মিশা সওদাগর-জায়েদ খানের পানেলের কথার লড়াইয়ের মধ্যে মিশা সওদাগর বলছেন, বিষয়গুলোকে তারা সিরিয়াসলি নিচ্ছেন না; স্রেফ মজা হিসেবে দেখছেন।

মিশা-জায়েদ প্যানেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণপ্যানেলের সহসভাপতি প্রার্থী চিত্রনায়ক রিয়াজ নির্বাচনী প্রচারণায় বলেন, “অপর পক্ষের ২০ জন গিয়েছিল নির্বাচন কমিশনের কাছে। তারা নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার জন্য বলেছে। তারা ভয় পেয়েছে।”

অভিযোগ নিয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে মিশা সওদাগর মজার ছলে সাংবাদিকদের বলেন, “রিয়াজ সেদিন আমাকে হাগ করে বলেছে, ভাই আমরা এমনি মজা করব। একজন আরেকজনকে প্রভোক করব-সেটা আলাদা বিষয়। এটাই তো মজা। কাদা ছোড়াছুড়ি ধরে নেন আমাদেরই তৈরি।”

২৮ জানুয়ারি ভোটের মাধ্যমে আগামী দুই বছরের জন্য নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন শিল্পীদের স্বার্থ সংরক্ষণে গঠিত চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্যরা।

তার আগে দুই প্যানেলের নির্বাচনী প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠেছে এফডিসি; এক প্যানেল আরেক প্যানেলকে নিয়ে নানা বক্তব্য দিচ্ছেন।

তবে মিশা সওদাগর দাবি করছেন, তার প্যানেলের সদস্যরা ‘শান্তিপ্রিয় মানুষ।’

“আমরা কোথাও কোনো অভিযোগ করিনি। সেদিন কাঞ্চন ভাইয়ের সঙ্গে আমরা বলেছিলাম, নির্বাচন পেছানোর কোনো কারণ নেই। নির্বাচন করতে হবে।”

ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছে হেরে গেলেও একসঙ্গে কাজ করার ইচ্ছার কথা জানিয়ে মিশা বলেন, “কাঞ্চন ভাই ডাকলে আমাকে তার পাশে পাবে। আমি বিশ্বাস করি, কোনোভাবে রেজাল্ট যদি উলটা হয়; কাঞ্চন ভাইকে ডাকলেও আমরা পাব। তিনি পিওর, পারফেক্ট ও খাঁটি মানুষ।”

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৩ মেয়াদের নির্বাচনে কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন পীরজাদা শহিদুল হারুন। দুজন সদস্য হলেন- বি এইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী।

''