সেল্তার বিপক্ষে হেরেই গেল বার্সা

শিরোপা ভাগ্য নিজেদের হাতে ছিল না। তবে সেল্তা ভিগোকে হারিয়ে নিজেদের কাজটা অন্তত করে রাখতে চেয়েছিল বার্সেলোনা। লিওনেল মেসির চমৎকার গোলে এগিয়েও গিয়েছিল তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্যবধান ধরে রাখতে পারেনি দলটি। সান্তি মিনার জোড়া গোলে ঘরের মাঠে হেরেছে রোনাল্ড কুমানের দল।

লা লিগায় সোমবার ২-১‌ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। এক রাউন্ড বাকি থাকতে আতলেতিকো মাদ্রিদের চেয়ে ৭ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়ায় শিরোপার আশা শেষ হয়ে গেছে দলটির।

নতুন চুক্তি না করলে হয়তো প্রিয় কাম্প নউয়ে নিজের সবশেষ ম্যাচটি খেলে ফেললেন মেসি।

আতলেতিকো জেতায় নিজেরা জিতলেও শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে যেত বার্সেলোনা। হেরে যাওয়ায় সর্বোচ্চ তৃতীয় হতে পারে তারা। 

ওসাসুনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে ৭ বছর পর লা লিগা শিরোপা জয়ের পথে আরেক ধাপ এগিয়ে গেছে দিয়েগো সিমেওনের দল। আথলেতিক বিলবাওকে ১-০ গোলে হারিয়ে লড়াইয়ে টিকে আছে রিয়াল মাদ্রিদ।

ঘরের মাঠে দশম মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় বার্সেলোনা। মেসির চমৎকার পাস কাজে লাগাতে পারেননি অঁতোয়ান গ্রিজমান। দুরূহ কোণ থেকে গোলরক্ষককে পরাস্ত করতে পারেননি ফরাসি এই ফরোয়ার্ড।

পাঁচ মিনিট পর মাঝমাঠে বল পেয়ে দারুণ গতিতে ডি-বক্স পর্যন্ত এগিয়ে যান উসমান দেম্বেলে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দুর্বল শট নিয়ে হতাশ করেন দলকে। খানিক পর কাছ থেকে ভলি লক্ষ্যে রাখতে পারেননি মেসি।

২৮তম মিনিটে চমৎকার হেডে বার্সেলোনাকে এগিয়ে নেন এই আর্জেন্টাইন তারকা। সের্হিও বুসকেতসের নিখুঁত ক্রস দূরের পোস্ট দিয়ে জালে পাঠান অরক্ষিত মেসি। চলতি আসরে এটি তার ৩০তম গোল, অনেকটা এগিয়ে গোলদাতাদের তালিকার শীর্ষে তিনি।

চার মিনিট পর দ্বিগুণ হতে পারতো ব্যবধান। কিন্তু পেনাল্টি স্পটের কাছে পেদ্রির পাস নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেননি বার্সেলোনা অধিনায়ক। 

খেলার ধারার বিপরীতে ৩৮তম মিনিটে সমতা ফেরায় সেল্তা। ইয়াগো আসপাসের কাছ থেকে বল পেয়ে ডি-বক্সের মাথা থেকে কাছের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন মিনা। গোলের জন্য সফরকারীদের এটাই ছিল প্রথম শট! মিনাকে চ্যালেঞ্জ না জানিয়ে ঠায় দাঁড়িয়ে ছিলেন জেরার্দ পিকে। তার জন্য শট বা বল, কিছুই দেখতে পাননি মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

প্রথমার্ধে রক্ষণে নিজেদের গুটিয়ে রাখা সেল্তা বিরতির পর খেলে আক্রমণাত্মক ফুটবল। জমে ওঠে ম্যাচ। তবে ভালো সুযোগ তৈরি করতে ভুগছিল দুই দলই।

৬১তম মিনিটে কর্নার থেকে পিকের হেডে সুযোগ আসে রোনাল্দ আরোহোর সামনে। কিন্তু খুব কাছ থেকেও হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি তিনি।

৮৩তম মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ক্লেমোঁ লংলে। এর দুই মিনিট পর এগিয়ে যেতে পারতো সেল্তা। অগাস্তো সোলারির শট ঝাঁপিয়ে কোনোমতে ঠেকান টের স্টেগেন। পরের মিনিটে মাত্র পাঁচ গজ দূর থেকে গোলের সুবর্ণ সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি বার্সেলোনা স্ট্রাইকার মার্টিন ব্রাথওয়েট।

৮৯তম মিনিটে দ্বিতীয় গোলে ব্যবধান গড়ে দেন মিনা। সোলারির শট পোস্ট লেগে ফিরলে জাল খুঁজে নেন স্প্যানিশ এই ফরোয়ার্ড। 

মৌসুমের শুরুটা বাজে হয়েছিল কাতালান দলটির। শেষটা যেন ছাড়িয়ে গেল সেটিকেও। সবশেষ ৫ ম্যাচে জয় কেবল একটি, হার-ড্র দুটি করে।

৩৭ ম্যাচে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনেই আছে বার্সেলোনা। ৮৩ পয়েন্ট নিয়ে চূড়ায় আতলেতিকো মাদ্রিদ। শিরোপাধারী রিয়ালের পয়েন্ট ৮১।