লিভারপুলের ছয়ে ৬, ত্রিমুখী লড়াইয়ে বাজিমাত আতলেতিকোর

আগে গোল করে আশা জাগাল এসি মিলান। কিন্তু তাদের দুটি ভুলে তা হাওয়ায় মিলিয়ে গেল। ঘুরে দাঁড়িয়ে শতভাগ জয়ের ধারা ধরে রাখল লিভারপুল। আরেক ম্যাচে পোর্তোকে হারিয়ে সমীকরণ মেলাল আতলেতিকো মাদ্রিদ। গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোয় উঠল দিয়েগো সিমেওনের দল।

মিলানের সান সিরোয় মঙ্গলবার রাতে ‘বি’ গ্রুপের শেষ রাউন্ডে ২-১ গোলে জিতেছে লিভারপুল। প্রথম ইংলিশ দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ পর্বের ছয় ম্যাচের সবগুলোই জিতল তারা।

একই সময়ে শুরু হওয়া অন্য ম্যাচে পোর্তোয় ৩-১ গোলে জিতেছে আতলতিকো।

গ্রুপ সেরা হয়ে লিভারপুলের নকআউটে খেলা নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। শেষ রাউন্ডের আগে বাকি তিন দলেরই আশা বেঁচে ছিল।

পোর্তোর জিতলেই হতো; কিন্তু ঘরের মাঠে খেলার সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি তারা। ৮৯ মিনিট পর্যন্তও আতলেতিকো এগিয়ে ছিল স্রেফ ১-০ গোলে। এরপর স্প্যানিশ দলটি করে আরও দুই গোল। পরে একটি শোধ দেয় পর্তুগিজ দলটি। দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই ১০ জনের দলে পরিণত হয়েছিল।

এসি মিলান শুরুটা করে আত্মবিশ্বাসী। যদিও শুরুতে পরিষ্কার সুযোগ তৈরি করতে ভুগছিল দুই দলই।

২৮তম মিনিটে এগিয়ে যায় মিলান। এই গোলে দায় আছে তাকুমি মিনামিনোর। প্রতিপক্ষের কর্নারে কাছের পোস্টে ক্লিয়ার করার চেষ্টায় বল মিস করেন তিনি। গোলরক্ষক আলিসন বুঝে উঠতে পারেননি, তার হাত ছুঁয়ে বল যায় ফিকায়ো টোমোরির কাছে। জালে পাঠাতে ভুল করেননি এই ইংলিশ ডিফেন্ডার।

ওদিকে আতলেতিকো-পোর্তো ম্যাচে তখন স্কোরলাইন গোলশূন্য। মিলান উঠে যায় তালিকার দুই নম্বরে, পরের ধাপে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকে ভালোভাবেই।

তাদের এই স্বস্তি যদিও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৩৬তম মিনিটে সমতায় ফেরে লিভারপুল। অ্যালেক্স অক্সলেইড-চেম্বারলেইনের শট গোলরক্ষক ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। কাছ থেকে ঠিকানা খুঁজে নেন মোহামেদ সালাহ।

দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের চ্যালেঞ্জে থিও এরনঁদেজ ডি-বক্সে পড়ে গেলে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করেন মিলানের খেলোয়াড়রা। তবে রেফারির সাড়া মেলেনি।

মিলানের মারাত্মক ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে পাঁচ মিনিট পর এগিয়ে যায় লিভারপুল। সতীর্থের পাসে টোমোরি বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে ব্যর্থ হলে পেয়ে যান সাদিও মানে। সেনেগালের এই ফরোয়ার্ডের শট গোলরক্ষক ফেরানোর পর হেডে বল জালে পাঠান দিভোক ওরিগি।

ওদিকে, ঠিক ওই সময়ই পোর্তোয় আতলেতিকোকে ১-০ গোলে এগিয়ে নেন অঁতোয়ান গ্রিজমান। স্প্যানিশ দলটি উঠে যায় দুই নম্বরে। শেষ পর্যন্ত অবস্থানটা ধরেও রাখল তারা।

৬ ম্যাচে শতভাগ সাফল্যে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল। ৭ পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ আতলেতিকো।

৫ পয়েন্ট নিতে তিনে থাকা পোর্তো আগামী মৌসুমে খেলবে ইউরোপা লিগে। এসি মিলান শেষ করল ৪ পয়েন্ট নিয়ে।