১৯৯৬ বা ২০১০ আর আসবে না: ডিএসই চেয়ারম্যান

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ১৯৯৬ সাল বা ২০১০ সালের মত ধস আর হবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান ইউনুসুর রহমান।

বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সাংবাদিকদের সাথে এক মত বিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সাবেক সিনিয়র সচিব ইউনুস বলেন, “বর্তমানে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ১৯৯৬ সাল বা ২০১০ সালের মত ধস হওয়ার সম্ভাবনা কম। সেই সময় পুঁজিবাজারে সেরকম কোনো আইন-কানুন ছিল না।

“কিন্তু এখন বাজারে অনেক পরিবর্তন হয়েছে, অনেক নতুন আইন কানুন হয়েছে। আগের চেয়ে এখন সারভেইলেন্স অনেক ভালো, কেউ সহজে কিছু করে পার পাবে না।”

সরকার এবং সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) বিভিন্ন উদ্যোগে দেশের পুঁজিবাজার এখন ‘ঘুরে দাঁড়িয়েছে’ বলেও মন্তব্য করেন ডিএসই চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, “পুঁজিবাজারের উপর দেশের মানুষের আস্থা ফিরে এসেছে। পুঁজিবাজার সামনে অনেক বড় হবে। আমরা সেসব নিয়ে কাজ করছি।”

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বাজার মূলধন কিছু দিন আগেও জিডিপির ১১ শতাংশ ছিল, এখন তা বেড়ে ১৭ শতাংশের মত হয়েছে বলে তথ্য দেন চেয়ারম্যান।

তবে ভারতের পুঁজিবাজারের বাজার মূলধন যে তাদের জিডিপির ৭৫ শতাংশ, সে কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “সেই হিসাব করলে আমাদের পুঁজিবাজার অনেক ছোট এবং আমাদের বড় হওয়ার অনেক যায়গা আছে।”

সেজন্য দেশের পুঁজিবাজারের সমস্যাগুলো ধীরে ধীরে দূর করার ওপর জোর দেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, “একটি আধুনিক স্টক এক্সচেঞ্জের যে ধরনের আইটি অবকাঠামো থাকা দরকার, ডিএসইতে সেটা ছিল না। আমরা সেটার কাজ শুরু করেছি। আমাদের প্রায় দুই বছর সময় লাগবে। দুই বছর পরে আমরা পৃথিবীর আধুনিকতম স্টক এক্সচেঞ্জের আইটি অবকাঠামো করতে পারব। তখন দেশের বাইরে থেকে বসে লেনদেন করা যাবে।”

তবে লেনদেনে যে সমস্যগুলো এখন হচ্ছে, ফেব্রুয়ারির মধ্যেই সেগুলোর সমাধান করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন ইউনুসুর রহমান।

অন্যদের মধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালক রকিবুর রহমান, শাকিল রিজভী, মোহাম্মদ শাহজাহান, সালমা নাসরিন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোস্তাফিজুর রহমান এবং ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মতিন পাটোয়ারী মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।