যৌন নিপীড়ন অভিযোগ উবার নিষ্পত্তি করলো ৯০ লাখ ডলারে

ছবি- রয়টার্স
ক্যালিফোর্নিয়ায় যৌন নিপীড়ন এবং হয়রানির অভিযোগ নিষ্পত্তি করতে উবারকে দিতে হচ্ছে ৯০ লাখ ডলার। প্রায় দুই বছর ধরে চলা যুক্তি-পাল্টা যুক্তির পর এই নিষ্পত্তি মিলল।

এর আগে ক্যালিফোর্নিয়া পাবলিক ইউটিলিটি কমিশন (সিপিইউসি) উবারকে যৌন নিপীড়ন এবং হয়রানি সম্পর্কে উবারের হাতে থাকা তথ্য হস্তান্তর করতে বলেছিল - কিন্তু উবার সেখানে বেঁকে বসে। সে সময় উবারের যুক্তি ছিল, এটি ভুক্তভোগীদের গোপনতার “মর্মান্তিক লঙ্ঘন” হবে।

সিপিইউসি জানিয়েছে, প্রাথমিক জরিমানা প্রায় ছয় কোটি ডলার জরিমানা থেকে কমে আসা এই অর্থ যাত্রী-নিরাপত্তা বিষয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রমের জন্য খরচ হবে।

এই রায়ের মাধ্যমে উবার, সিপিইউসি এবং রেপ অ্যাবিউজ অ্যান্ড ইনসেস্ট ন্যাশনাল নেটওয়ার্কের (আরএআইএনএন) মধ্যে প্রায় দুই বছর ধরে চলা একটি বিরোধের অবসান ঘটলো বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। মামলায় মূল প্রশ্ন ছিল, চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এলে সে সম্পর্কে উবারের তথ্য হস্তান্তর করা উচিত কি না।

উবারের যুক্তি ছিল, এই ধরনের রেকর্ড জনসমক্ষে প্রকাশ করার বিষয়টি ঘটনার শিকার ব্যক্তিদের জন্য বেদনাদায়ক হতে পারে। এর ফলে ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটলে আক্রান্তরা এ বিষয়ে রিপোর্ট করার বিষয়েও নিরুৎসাহিত হতে পারে। এ মামলায় সিপিইউসি সংশ্লিষ্ট সবার নাম-পরিচয় জিজ্ঞাসা করছে, যার মধ্যে আক্রান্ত ব্যক্তিরাও অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার কর্মকর্তারা সংবেদনশীল তথ্যকে যথাযথ যত্নের সাথে ব্যবহার করতে পারবেন কিনা তা নিয়ে একই উদ্বেগ প্রকাশ করেছিরো আরএআইএনএন।

এর বিপরীতে সিপিইউসি বলেছে, প্রতিষ্ঠানটি কেবল “সীলগালা করা” তথ্য চেয়েছে। এর মানে হলো, প্রতিটি পৃথক মামলার বিবরণ গোপন থাকবে। সিপিইউসি বলেছে, উবারের যুক্তি আসলে  “কমিশনের কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা” ছাড়া আর কিছুই নয়।

অভিযোগ ওঠার এক বছর পর ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে সিপিইউসি প্রাথমিকভাবে উবারকে পাঁচ কোটি ৯০ লাখ ডলার জরিমানা করে।

এর পর উবার আপিল করলে এবার ৯০ লাখ ডলারে নিষ্পত্তিতে সকল পক্ষ সম্মত হয়েছে। এর ফলে--

  • “সহিংসতা এবং যৌন সহিংসতার শিকার” ব্যক্তিদের জন্য ৫০ লাখ ডলার ব্যয় করা হবে, বিশেষত যারা যাত্রী ছিলেন তাদের জন্য।

  • “পরিবহন অংশে” সহিংসতা মোকাবেলায় ৪০ লাখ ডলার ব্যয় হবে। এবং

  • উবার ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের সাধারণ তহবিলে অতিরিক্ত দেড় লাখ ডলার দেবে।

উবার এখন থেকে ক্যালিফোর্নিয়ার কর্মকর্তাদের বিস্তারিত প্রতিবেদনও সরবরাহ করবে। তবে,  ব্যক্তিপরিচয় রক্ষার জন্য নামের পরিবর্তে ছদ্মনাম বা শনাক্তকারী তথ্য ব্যবহার করে। পাশাপাশি, আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে যারা কর্তৃপক্ষকে স্বেচ্ছায় তথ্য সরবরাহ করতে চায়, উবার তাদের জন্য একটি তথ্যপ্রদান ব্যবস্থা তৈরি করবে।

এক বিবৃতিতে “কমিশন এই সমঝোতা মেনে নেওয়ায়” উবার সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

“সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, আমরা এমন একটি সমাধান নিয়ে এগিয়ে যেতে পারছি যা আক্রান্ত ব্যক্তিদের গোপনতা সংরক্ষণ করে।"

উবারের নিজের প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা গেছে প্রতিষ্ঠানটির কাছে ২০১৭ এবং ২০১৮ সালে যৌন নিপীড়নের প্রায় ৬,০০০ অভিযোগ ছিল। উবার সে সময় সাফাই দিয়েছিল যে, সে সময় দুইশ’ কোটির বেশি রাইডের তুলনায় সেটি একটি ক্ষুদ্র ভগ্নাংশ ছিল।

“কেবল উবারেই যে এমনটা ঘটে, বিষয়টি তা-ও নয়।”

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয় আরেকটি রাইড-হেইলিং অ্যাপ লিফট এই বছরের শুরুতে প্রথম সুরক্ষা প্রতিবেদনে ২০১৭ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে ৪,০০০ টিরও বেশি যৌন নিপীড়নের ঘটনা উল্লেখ করেছে।