দক্ষিণ চীন সাগরে যুক্তরাষ্ট্র-জাপান- অস্ট্রেলিয়ার নৌ মহড়া

দক্ষিণ চীন সাগরে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া ত্রিপক্ষীয় নৌ মহড়া করেছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সপ্তম নৌবহর।

সোমবার এ মহড়া হয়েছে বলে মঙ্গলবার তাদের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

যুক্তরাষ্ট্রের এ নৌ বহরের আওতাধীন এলাকায় চলতি বছর সোমবারেরটা নিয়ে মোট ৫টি যৌথ মহড়া হয়েছে, বলা হয়েছে বিবৃতিতে।

ওই অঞ্চলে চীনের আগ্রাসী ভূমিকা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ায় একটি ‘অবাধ ও মুক্ত’ ইন্দো-প্যাসিফিক প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্ররা এ মহড়া করেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সপ্তম নৌবহর। 

দক্ষিণ এশিয়ায় বেইজিংয়ের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়েও ওয়াশিংটন বেশ চিন্তিত বলে জানিয়েছেন পর্যবেক্ষকরা। নির্বাচনের ঠিক আগের সপ্তাহে এ অঞ্চলে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সম্ভাব্য সফর নিয়েও নানান হিসাব-নিকাশ চলছে।

শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, পম্পেও আগামী ২৮ অক্টোবর শ্রীলঙ্কা সফর করবেন। একই দিন মালদ্বীপেও তিনি কয়েক ঘণ্টা কাটাতে পারেন বলে এ বিষয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুই কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

“বিদেশি প্রতিনিধিদের সফরের বিষয়টি চূড়ান্ত হলেওই কেবল এ সংক্রান্ত ঘোষণা দেওয়া হয়,” বিবৃতিতে জানিয়েছে মালদ্বীপের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীনের বিনিয়োগ ব্যাপক হারে বেড়েছে, যা আঞ্চলিক শক্তি ভারতকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে বলে অনুমান বিশ্লেষকদের। চলতি মাসে চীনের শীর্ষ কূটনীতিক ইয়াং জিয়েচিও কলম্বো সফর করেছেন।

চলতি মাসে পম্পেওর নয়া দিল্লি সফরেও আসার কথা রয়েছে বলে গত সপ্তাহে রয়টার্সকে ভারতের এক কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন। পম্পেওর সঙ্গে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপারেরও নয়া দিল্লি আসার কথা।

যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের এই দুই শীর্ষ কর্মকর্তা ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামানিয়াম জয়শংকর ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন বলে জানিয়েছিলেন ওই কর্মকর্তা।