কোভিড-১৯: নিউ জিল্যান্ডের অকল্যান্ডে ফের লকডাউন

নিউ জিল্যান্ডে নতুন একজন করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হওয়ার পর দেশটির বৃহত্তম শহর অকল্যান্ডে চলতি মাসে দ্বিতীয়বারের মতো লকডাউন দেওয়া হয়েছে।

রোববার ভোর থেকে শুরু হওয়া এ লকডাউন সাত দিন স্থায়ী হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা অর্ডান। 

রোববার অকল্যান্ডের প্রায় ২০ লাখ বাসিন্দা শহরজুড়ে লকডাউনের মধ্যে ঘুম থেকে জেগে উঠেন, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এর আগের দিন শনিবার গভীর রাতে প্রধানমন্ত্রী অর্ডান এ লকডাউনের ঘোষণা দেন। 

এ দিন ২০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। তিনি এক সপ্তাহ ধরে সংক্রমিত হলেও আইসোলেশনে ছিলেন না। শুক্রবার তিনি করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাতে যান তারপর সেখান থেকে জিমে যান।

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে অর্ডান বলেন, “জনসাধারণের মধ্যে আরও আক্রান্ত থাকাটাই স্বাভাবিক।”

প্রধানমন্ত্রী একথা বললেও রোববার শহরটিতে নতুন করে আর কেউ শনাক্ত হয়নি বলে রয়টার্স জানিয়েছে।

ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে এক পরিবারের তিন জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক যুক্তরাজ্যের ধরনটি শনাক্ত হয়েছিল। তখন অকল্যান্ডে তিন দিনের লকডাউন দেওয়া হয়েছিল।

নতুন যে ব্যক্তির ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তিনিও যুক্তরাজ্যের ধরনটিতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এবারের লকডাউন চলাকালে লোকজন শুধু জরুরি কেনাকাটা ও কাজের জন্য বাড়ি থেকে বের হতে পারবেন। এ সময় পার্ক, জিম, রেস্তোরাঁসহ জনসমাগমের স্থানগুলো বন্ধ থাকবে। নিউ জিল্যান্ডের অন্যান্য এলাকায়ও এ সাত দিন সীমিত মাত্রার বিধিনিষেধ জারি থাকবে।