উন্নয়নশীল বিশ্বে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবেন বাইডেন

ছবি: রয়টার্স
উন্নয়নশীল বিশ্বের দেশগুলোর জন্য ফাইজারের আরও ৫০ কোটি ডোজ কোভিড টিকা দান করতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে বুধবার এক ভার্চুয়াল বৈঠকে এই টিকাদানের প্রতিশ্রুতি দেবেন বলে জানিয়েছেন মার্কিন কর্মকর্তারা।

বাড়তি এই টিকা নিয়ে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুতি টিকার মোট সংখ্যা ১শ’ কোটি ছাড়িয়ে যাবে।

বিবিসি জানায়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অন্তত ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দিতে হলে ১ হাজার ১শ কোটি ডোজ টিকা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ২০২১ সালের শেষ নাগাদ প্রতিটি দেশের জন্য ন্যূনতম ৪০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে। কিন্তু তা পূরণ হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

জাতিসংঘে প্রথম ভাষণে ঐক্যের ডাক বাইডেনের  

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাবে, উচ্চ-আয়ের অনেক দেশ তাদের জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি মানুষকে এরই মধ্যে অন্তত এক ডোজ টিকা দিলেও নিম্ন-আয়ের দেশগুলোতে মাত্র ২ শতাংশ মানুষ কেবল প্রথম ডোজ কোভিড টিকা নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র এরই মধ্যে ৫৮ কোটি ডোজ টিকার প্রতিশ্রুতি দিলেও তার মধ্যে মাত্র ১৪ কোটি ডোজ এ পর্যন্ত সরবরাহ করেছে। তাহলে এখন তফাৎটা কী?

বিজ্ঞান বিষয়ক বিশ্লেষণধর্মী ফার্ম এয়ারফিনিটি বলছে, বিশ্বে টিকা উৎপাদন গত কয়েকমাসে বেড়েছে এবং টিকাও সহজলভ্য হয়ে গেছে। বছর শেষে ধনী দেশগুলো বাড়তি ১২০ কোটি ডোজ টিকা হাতে পাচ্ছে।

টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়া নিয়ে প্রচার চালানোর পরও তাদের হাতে বাড়তি টিকা থাকছে। তাই এই বাড়তি টিকা কোথাও দান করা না হলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে প্রায় ২৪ কোটি ১০ লাখ টিকা। তবে এই টিকাগুলো খুব দ্রুত পাঠিয়ে দেওয়াটাও দরকার।