সাফারি পার্কে আরও ১টি জেব্রার মৃত্যু

গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের আফ্রিকান কোর সাফারির বেষ্টনিতে জেব্রার বিচরণ। গত ২২ দিনে নয়টি জেব্রার মৃত্যু হওয়ায় এখন ২১টি জেব্রা রয়েছে এ বেষ্টনিতে।
গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আরও একটি জেব্রার মৃত্যু হয়েছে, এ নিয়ে এই মাসে ১০টি জেব্রার মৃত্যু হল।

গত ২২ দিনে নয়টি জেব্রার মৃত্যুর পর শনিবার সকালে আরও দুটি জেব্রার অসুস্থ হওয়ার খবর জানিয়েছিল পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়।

সে দুটির একটি মারা গেছে বলে পরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান সাফারি পার্কের প্রকল্প পরিচালক মো. জাহিদুল কবির।

শ্রীপুরের এই সাফারি পার্কে এখন ২১টি জেব্রা রয়েছে, তার মধ্যে এক অসুস্থ।

 

২২ দিনে সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যু

২২ দিনে সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যু

৯ জেব্রার মৃত্যু ‘ব্যাক্টেরিয়ায় ও মারামারিতে’

৯ জেব্রার মৃত্যু তদন্তে ৫ জনের কমিটি  

অসুস্থ জেব্রার চিকিৎসায় আবারও মেডিকেল বোর্ড সভায় বসছে বলে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জেব্রাগুলোর মৃত্যু প্রতিরোধে জরুরি চিকিৎসা এবং এধরনের অসুস্থতার কারণ উদঘাটনে এর আগেও মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা সাফারি পার্কে জরুরি সভায় মিলিত হয়েছিলেন। এই বোর্ডের পরামর্শ মতো প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

মেডিকেল বোর্ডে রয়েছেন, জাতীয় চিড়িয়াখানার অবসরপ্রাপ্ত কিউরেটর এবি এম শহীদুল্লাহ, ময়মনসিংহ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রফিকুল আলম, অধ্যাপক আবু হাদি মো. নুর আলী খান এবং সাফারি পার্কের ভেটারেনারি চিকিৎসক হাতেম সাজ্জাদ মো. জুলকারনাইন।

বিশেষজ্ঞ হিসেবে সভায় ছিলেন কেন্দ্রীয় ভেটারেনারি হাসপাতালের পরিচালক ড. শফিউল আহাদ সরদার (স্বপন) এবং কেন্দ্রীয় রোগ অনুসন্ধান গবেষণাগারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. গোলাম আজম চৌধুরী (টুলু)।

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জেব্রাগুলোর মৃত্যুর জন্য প্রাণঘাতী ব্যাক্টেরিয়ার আক্রমণ ও নিজেদের মধ্যে মারামারিকে কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে পার্ক কর্তৃপক্ষ।

তবে প্রকৃত কারণ উদঘাটন এবং করণীয় ঠিক করতে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে মন্ত্রণালয়।